পদ্মায় কেন ডুবছে গ্রামীণফোন?

বাংলাদেশের জন্য ২০২২ সালের ২৫ জুন গুরুত্বপূর্ণ দিন। সেদিন উদ্বোধন হয়েছিল দীর্ঘ প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু। কিন্তু, গ্রামীণফোনের জন্য সেই দিনটি ‘বেদনাদায়ক’।

পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ৪ দিন পর ২৯ জুন বিটিআরসি কল ড্রপ রেট কমিয়ে আনাসহ সেবার মান উন্নত না করা পর্যন্ত গ্রামীণফোনের নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দেয়। বিটিআরসিকে এই আদেশ জারি করতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ বিটিআরসিকে এর আগের দিন নির্দেশনা পাঠায়।

তবে সেবার মানের ক্ষেত্রে গ্রামীণফোন ঠিক কীভাবে ব্যর্থ হয়েছে, তা বলা হয়নি। কেমন মানদণ্ডে পৌঁছলে এ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হবে, সে বিষয়েও কিছু বলে দেওয়া হয়নি।

দেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন এমন নিষেধাজ্ঞা পেয়ে ‘আকাশ’ থেকে পড়ে। প্রতিষ্ঠানটি নিজস্ব পরীক্ষায় দেখেছে যে, তারা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) নির্ধারিত উন্নত সেবার সব মানদণ্ডের (কোয়ালিটি অব সার্ভিস) সূচক ঠিকভাবে বজায় রাখছিল।

এসব মানদণ্ডের মধ্যে ছিল কল ড্রপ রেট, কল সেটআপ টাইম, কল সেটআপ সাকসেস রেট, কল ক্লিয়ারিটি, সার্ভিস কভারেজ এরিয়া এবং ইন্টারনেট ডাউনলোড ও আপলোড স্পিড।

বিস্তারিত পড়ুন: পদ্মায় কেন ডুবছে গ্রামীণফোন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *